ইসলাম

জীবনের বাগানে সময়ের ফুল

সময় ভাবনা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

​ছাকিবুল ইসলাম কাসেমী

মানুষের জীবনে সময় একটি মহামূল্যবান গুরূত্বপূর্ণ ও তাৎপর্যবহ বিষয় ৷ যার কোনো বিকল্প নেই ৷ যার চলে যাওয়া কোনো অংশ ফিরিয়ে আনা যায় না ৷ তাই জীবনের প্রতিটি সেকেন্ট কে সর্বোত্তম কাজে ব্যায় করার চেষ্টা করা উচিৎ ৷ যেন পরে লজ্জিত হতে না হয় ৷ তাই সময় কে ঘিরে সুবিন্যস্ত ও সুপরিকল্পিত কার্যক্রম পরিচালনা আমাদের জন্য অপরিহার্য ৷ তেমনিভাবে লাভহীন কোনো কাজে সময় নষ্ট না করার চেষ্টা করাও জরুরী ৷ সর্বোৎকৃষ্ট পথ ও পদ্ধতি অবলম্বন করে সময়ের সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে ৷ আমাদের জীবনের প্রতিটি মূহুর্ত নিয়ে আল্লাহর সামনে জিজ্ঞাসিত হতে হবে ৷ আমাদের জীবনে সময়ের গুরূত্ব নিয়ে বর্ণিত চমৎকার কিছু উদৃতি এখানে উপস্থাপন করছি ৷

​— সময় স্বর্ণ দিয়ে গড়া, যদি তুমি সময় কে ধরতে না পার তাহলে তা চলে যাবে ৷

​—সময় গুপ্তধন ৷ যদি তুমি সময়কে নষ্ট কর তাহলে তুমি নিজেকেই বিনষ্ট করলে ৷

—সময় জীবন কে গড়ে তোলার মৌলিক উপকরণ ৷

—সময় নষ্ট করা মৃত্যুর চেয়েও জঘণ্য ৷ কেননা সময় নষ্ট তোমাকে আল্লাহ ও পরকাল থেকে বিচ্ছিন্ন করে দেয়, আর মৃত্যু তোমাকে দুনিয়া ও দুনিয়াবাসীদের থেকে বিচ্ছিন্ন করে দেয়!

—সময় একটি পরিশ্রমী শত্রু, তাকে প্রত্যেক পরিশ্রমীই পরাজিত করতে পারে৷

— অনেক মানুষ প্রচুর সময় ও শ্রম ব্যায় করে সংকট থেকে উত্তোরণের জন্য ৷ অথচ সংকট সমাধানের চেষ্টা করে না ৷

—ধীরতা ও ধৈর্যের ক্ষেত্রে সময় উঁটের ন্যায় ৷ ধীর গতিতে চলে ৷ কিন্তু তুমি চাইলে সময় তোমাকে নিয়ে সমগ্র বিশ্বও ভ্রমন করতে পারবে ৷

— সময় তরবারীর ন্যায়, যদি তুমি সময় কে না কাটো, তাহলে সময় তোমাকে কেঁটে ফেলবে !

— সময় ধারালো ছুরির ন্যায়, যদি তুমি তার হাতলে না ধর, তাহলে তার ধার দিয়ে তোমার হাত কেঁটে দিবে ৷​

—সমস্ত কাজই তার নির্দিষ্ট সময়ে আবর্তিত হয় ৷

— সময় সমুদ্রের মত, তুমি যদি সূক্ষ দক্ষ পরিপক্ক নির্মাতার মাধ্যমে সুপরিকল্পিত নিরাপদ নির্মানশৈলী অনুসৃত জাহাজ নিয়ে তাতে ভ্রমন না কর, তাহলে খুব শীঘ্রই তুমি কোনো ট্রাজিডিক্যাল গল্প হয়ে সাগরে ভাসতে থাকবে ৷ যার জন্য তুমি শুধু তোমাকেই ভৎসনা করবে ৷

— যার কোনো শিক্ষক নেই সময় তার শিক্ষক ৷

—সময় একটি সোনালী গল্পের মত ৷

—সময় পানির মত, যদি তুমি তা পান না কর তাহলে তোমাকে গিলে ফেলবে অথবা ডুবিয়ে ফেলবে এবং তোমার জীবন কে নষ্ট করে ফেলবে ৷

— সম্পদের মূল্যের মতোই সময় মূল্যবান ৷

— সময় আমাদের সামনে পথ বদলায় না , বরং আমরাই সময়ের সামনে পথ বদলে ফেলি ৷

— সময় আমাদের সর্বাধিক প্রয়োজনীয় জিনিস ৷ কিন্তু তার যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে আমরা বড় অমনোযোগী ৷

—রাত দিন তোমাতে কাজ করে, সুতরাং তুমিও তাতে কাজ কর ৷

—দিনপঞ্জীর সাথে প্রতারণা করো না, কেননা বৎসরের দিনগুলো থেকেইতো তুমি উপকৃত হয়ে থাকো ৷ কিছুলোক আছে যারা শুধু বৎসরের একটি সপ্তাকে অর্জন করে ৷ অপর কিছুলোক আছে যারা পূর্ণ বৎসরকেই অর্জন করে ৷

— শুধু শুধু সময় কাটানোতে কোনো আনন্দ নেই, বরং সময়কে ফলবান করে তোলার মধ্যেই রয়েছে প্রকৃত আনন্দ ৷

—যে প্রতিশ্রুতি কে সম্মান করে না, সে নিজেকে সম্মান করে না ৷

—সাধারন মানুষ সবসময় ভাবে কিভাবে সময়টা কাটানো যায়, আর মহৎলোকেরা ভাবে সময়টা কিভাবে কর্মময় করে তোলা যায়!

—সময় একটি মহা সম্পদ।

—সময় নষ্টের চেয়ে বড় কোনো অপরাধ নেই ৷

— পূর্ণ সময় কে কাজে লাগাও, একটি মূহুর্তও নষ্ট করো না ৷

—আমরা সময় কে কর্মের মাধ্যমে পরাজিত করি ৷ আমাদের আলস্যের সুযোগে সময় আমাদেরকে পরাজিত করে৷ যেমনিভাবে কর্মের মাধ্যমে ভূমিকে আমরা খেতে পারি নয়ত ভূমিই আমাদরকে খেয়ে নেয় ৷

— তুমি ব্যস্ত আছো এটা কোনো গুরূত্বপূর্ণ বিষয় নয়, বরং তুমি অর্থবহ কোনো কাজে নিজেকে মগ্ন রেখেছ কিনা সেটা গুরূত্বপূর্ণ ৷

—অনেক মানুষ আছে যারা বাহুল্য কিংবা দূর্ভোধ্য গ্রন্থ পাঠে সময় নষ্ট করছে ৷ অথচ এব্যপারে আরও সহজ সুবিন্যস্ত ও গভীরজ্ঞানের গ্রন্থও রয়েছে ৷

—সময় ধীরগামীদের শিল্প ৷ দ্রুতগামীদের জন্য কষ্ট ও প্রস্তুতিগ্রহনকারীদের জন্য সংকট ৷

—সময় আশ্বস্ত ও নিশ্চিন্তদের জন্য বিলাসীতা, অপেক্ষমানদের জন্য আতঙ্ক ও সফল গন্তব্য অর্জনকারীদের জন্য দর্শণ ৷

—সময় মিলনাকাঙ্ক্ষার মিষ্টি স্বপ্ন ৷ বিচ্ছেদের তিক্ত দ্বার ৷

—জীবন যখন তেমার হাতে, সময় তখন তুমিই ৷ আর তোমার বিষয়গুলো যখন অন্যের দ্বারস্থ সময় তখন অন্য কেউ ৷

—আমরা বীরত্বের সাথে এগিয়ে যাই কিংবা ভয়ে লুকিয়ে রই, ধাবমান চলমান জীবনের বিপরীতে সময় সময়ের মতোই বয়ে যায় ৷

—তুমি চাইলে প্রতি প্রহরেই জীবনের গল্প লিখতে পার ৷

—প্রতিটি কাজ তার নির্দিষ্ট সময়ে সম্পাদন করা উচিৎ ৷ কেননা একই সময়ে দুটি কাজে হাত দেওয়া, একই সাথে দুটি কাজকে নষ্ট করারই নামান্তর ৷

— আমি অতীতের কোনো বিষয় নিয়ে চিন্তা করি না, বর্তমানই আমার চিন্তার কেন্দ্র ৷

— যে ব্যক্তি দায়ীত্ব আদায়, বিধান পালন, সম্মান অর্জন, স্তুতিগানের পথ উন্মোচন অথবা কোনো কল্যাণ অর্জন কিংবা জীবন গড়ার কোনো শিক্ষা গ্রহণ ছাড়াই জীবনের একটি দিন কাটিয়ে দিল, সে যেন ঐ দিনটিকে অপমান করল এবং নিজের প্রতি অবিচার করল ৷

—যে ব্যক্তি সময়ের অপব্যবহার করে, সে যেন নিজের অক্ষমতার ব্যপারে প্রথম অভিযোগ করে ৷—চারভাবে সময় নষ্ট হয়, অবসর,অলসতা, মন্দকাজ এবং অসময়ে কাজ করা ৷

—সময় কিছু দিরহামের মত ৷ অথবা এমন একটি অনন্য দিরহামের মত , তুমি যার মালিক ৷ এটা তুমি কোথায় খরচ করবে সে সিদ্ধান্ত তুমিই নিবে ৷ সুতরাং অন্যদেরকে সে দিরহামটি তোমার জন্য খরচ করার সুযোগ দিও না ৷

—আমরা সময়ের বিবর্তনের সঙ্গে প্রবাহিত হই ৷ সংকিত সব বিষয়কে অপছন্দ করি ৷

— জীবনে কিছু শান্ত সময় পেয়ে যাওয়াটা খবুই গুরূত্বপূর্ণ বিষয় ৷

— যাকে কাজের সময় দেওয়া হয়েছে তাকে নিত্য বর্ধনশীল তোহফা দেওয়া হয়েছে ৷

—তোমাকে দেয়া সময় নিয়ে কীভাবে জীবন যাপন করতে হবে তা সুন্দরভাবে জেনে নাও ৷

— প্রত্যেক হৃদয়ে কিছু ময়লা-আবর্জনা রয়েছে, আল্লাহর সাথে গভীর সম্পর্কই তা পরিষ্কার করতে পারে ৷ কিছু ভয় ও উদ্বেগ আছে, একান্তে আল্লাহর প্রেম তা মুছে দিতে পারে ৷ কিছু দুশ্চিন্তা আছে, আল্লাহর সাথে পরিচয়ের আনন্দ ও সম্পর্কের সততা তা শেষ করে দিতে পারে ৷ কিছু অস্থিরতা ও উৎকণ্ঠা আছে ,আল্লাহর সাক্ষাৎ ও তার সন্ধানে দৌঁড়-ঝাপই তা শান্ত করতে পারে ৷ কিছু ব্যর্থতার আগুন আছে, আল্লাহর আদেশ নিষেধ ও সিদ্ধান্তের প্রতি পূর্ণ আনুগত্য ও তার সাক্ষাৎ নাগাদ ধৈর্যের পরাকাষ্ঠা প্রদর্শনই তা নির্বাপিত করতে পারে ৷ কিছু প্রচণ্ড আশা আকাঙ্ক্ষা আছে, একমাত্র মহান প্রভু কাঙ্ক্ষিত হলেই এসবে তালা লাগতে পারে ৷ কিছু ক্ষুধা তৃষ্ণা আছে, রাব্বে কারীমের ভালোবাসা স্মরণ ও নিবেদিত প্রেমই তা মিটাতে পারে ৷

—সময়ই ভবিষ্যত ৷ তুমি তোমার চব্বিশ ঘন্টার জীবনে যা করছ, তা তোমার আগামী গঠনে ভূমিকা রাখবে ৷

—সময় ধৈর্য দুটি শক্তিশালী যোদ্ধার নাম ৷

— সময় তোমার জীবনের মূলধন ৷ এটা এমন এক মূলধন, যার তুমি একক মালিক ৷ তুমি একাই এর সম্ভাব্য ব্যয়ের পথ চূঢ়ান্ত করার ক্ষমতা রাখ ৷ সুতরাং তোমার প্রতিনিধি সেজে অন্যরা যেন তা ব্যায় করার ঠিকাদারী না নিতে পারে-তা খেয়াল রাখ ৷

—ব্যক্তির জীবন কীভাবে চুরি হয়ে যায় জানো ? কালকের অপেক্ষায় আজকের দিনের ব্যপারে উদাস হয়ে যায় ৷ এভাবেই আগামীর দোহাই দিয়ে দিন কাটতে থাকে, একসময় সব সময় ফুরিয়ে যায় ৷ তার হাত সবরকম কল্যাণ ও অর্জন থেকে শূণ্যই রয়ে যায়!

— সময় প্রতিটি মানুষের জন্যই জীবন গঠনের মূল পাথেয় , এবং এমন অনন্য উকরণ যা থেকে কেউ বঞ্চিত হয় না ৷

— ছোট কাজ দিয়ে শুরু কর, বড় স্বপ্ন ভাবনায় লালন কর, একই সময়ে অনেক কাজ দিয়ে সময় কে দুঃসহ করে তুলো না ৷ সহজ ও সূক্ষ্ম বিষয় দিয়ে কাজের শুরু কর, তারপর ধীরে ধীরে গভীর ও জটিল বিষয়ের দিকে এগিয়ে যাও ৷

—সময় সম্পদের চেয়েও মূল্যবান ৷ তুমি সম্পদ আরেকটু বাড়িয়ে উপার্জন করতে পারবে, কিন্তু তুমি চাইলেই সময় তোমার বরাদ্দ থেকে বাড়াতে পারবে না!

—সিদ্ধান্ত গ্রহণের আবশ্যকতা, দ্রুততা ও ধীরতা বিবেচনায় চিন্তা ও কর্মের একটি লিস্ট বানিয়ে নাও ৷ অতঃপর কালবিলম্ব না করে ঝটপট কাজ শুরু করে দাও ৷

—যতদিন পর্যন্ত তুমি আত্মপরিচয় লাভ করতে পারবে না, ততদিন তুমি সময়ের মূল্যও জানতে পারবে না ৷ আর যতদিন তুমি সময়ের সঠিক মূল্য জানবে না, ততদিন সময় কে কাজেও লাগাতে পারবে না ৷

—সময়তো একটি পাত্র সদৃশ ৷ আমরা যা ইচ্ছা তাই দিয়ে তা পূর্ণ করতে পারি ৷

— আমরা যখনই কোনো কাজের ইচ্ছা করি তখন তার জন্য একটি সময় সৃষ্টি করি ৷

—আমরা জীবনে বিশেষ যে অধিকার লাভ করি তা হল সময় ৷ এমনকি যার কাছে আর কিছুই থাকে না তার কাছেও ৷

—অনেকেই ইসলামের মৌলিক যুগের স্বাদ স্পর্শ করার আকাঙ্ক্ষা করে, কিন্তু প্রকৃতপক্ষে সোনালি সে যুগের তরবারী ইসলামের মর্যাদার কারণে বিজয়ী হয় নি বরং সূক্ষ্ম ও সূতীক্ষ্ণ মর্যাদার গল্পগুলো এমন এক পবিত্র সময় কে ঘিরে রচিত হয়েছে, যে সময়ের সাথে তোমার সময়েরও এক নিবিড় যোগসূত্র রয়েছে ৷

—বৈশ্বিক প্রবঞ্চণার প্রহরে দৃঢ় কথাই প্রভাবক কর্মের রূপ ধারণ করে ৷

—কোনো ওযর আপত্বি চলবে না, বাঁচার মত বাঁচতে হলে তোমাকে তোমার সময়ের উপর প্রভাব বিস্তার করতেই হবে ৷

— কোনো কাজের জন্য তুমি যখন চাইবে তখন সময় পাবে না, বরং যখনই সময় পাও তখনই কাজ করে নাও ৷

—প্রকৃত বন্ধুদেরকে দুঃসময়ে চেনা যায় ৷

— সময় কারও জন্য অপেক্ষা করে না ৷

—বুদ্ধিমান ঠিকসময়ে কাজ করে নেয় ৷ নির্বোধ শেষ সময়ে কাজ করে ৷ উভয়ে একই কাজ ভিন্ন ভিন্ন সময়ে করে ৷

— যথার্থ ও উপযুক্ত সময়ে মৃত্যবরণ করা মানুষের জীবনের একটি চমৎকার সৌভাগ্য ৷

— একটি বিষয়ই এমন যাকে হাজার চেষ্টা করেও আরেকবার আনা যায় না, তা হলো সময় ৷

—চলমান সময়ে তোমার জন্য অকল্যাণকর বলেই জরুরীভাবে দোয়াতে প্রার্থিত বিষয় প্রাপ্তিতে বিলম্ব হয় ৷ এবং যথাসময়ে তা তোমার জন্য তোমার উপযোগীরূপে ব্যবস্থা করা হয়, কিন্তু তুমি যা নিজের জন্য চাও হয়ত তা নয় ৷ আর তিনি যখন চান তখনই হয়, তোমার প্রত্যাশিত সময়ে নয় ৷

—ব্যবসা বানিজ্যের মাধ্যমে তুমি তোমার হারিয়ে যাওয়া সম্পদ হয়ত পূনরূদ্ধার করতে পারবে , পড়ালেখার মাধ্যমে হয়ত জ্ঞান অর্জন করতে পারবে , ভারসাম্যপূর্ণ জীবন ও চিকিৎসার মাধ্যমে হয়ত সুস্থতা ফিরিয়ে আনতে পারবে, কিন্তু তোমার বিনষ্ট সময় কিন্তু স্থায়ীভাবেই তোমার জীবন থেকে হারিয়ে যায় ৷

—সময় নিয়ে সেই নৈরাশ্য বোধ করে যে জানেনা যে,আল্লাহর দয়া সময়ের আগে আগে চলে,সময় কখনও আল্লাহর দয়া কে পিছনে ফেলতে পারে না ৷

— সময় সম্পদের চেয়েও অনেক বেশী মূল্যবান ৷ তাই তা খুব বুঝে শুনে ব্যায় কর ৷

—সুবিন্যস্ত সময়ই উত্তম ৷ এটি সর্বোত্তম সাজানো চিন্তার ব্যপারে সূদৃঢ় প্রমান বহন করে ৷

—মানুষ যা কিনে না, এমন জিনিস আবিষ্কারে সময় নষ্ট করা কখনও জরুরী হতে পারে না ৷— অপেক্ষমান মানুষের জন্য সময় বড়ই ধীরগতি সম্পন্ন ৷

— ভীত মানুষের জন্য সময় খুবই দ্রুতগামী ৷

—দুশ্চিন্তাগ্রস্তদের জন্য সময় খুবই দীর্ঘ ৷

— আনন্দে আত্বহারাদের জন্য সময় খুবই সংক্ষিপ্ত—কিন্তু যারা জীবন কে ভালোবাসে তাদের জন্য সময়ই চিরন্তণ সত্য ৷ সময়ই অপেক্ষাহীন গন্তব্য।

৷সূত্র:https://forums.way2allah.com/forum/منتديات الطريق إلي الله​

Facebook Comments

Leave a Reply