পরিবার সচেতনতাস্বামী-স্ত্রী

পারিবারিক টুকরো কথা—২

সুখময় পারিবারিক জীবন

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

​নকীব বিন মুজীব          01৷ 03৷ 2019

একটু খেয়াল করলে দেখি : পারিবারিক জীবনের ছোট ছোট প্রতিটি কাজই খুব গুরুত্বপূর্ণ ৷ কোন একটা বিষয়ে সামান্য অবহেলাও কখনো কখনো অনেক বড় ক্ষতির কারণ হয় ৷ বিপরীতে ছোট ছোট কোন কাজও অনেক সময় স্বামী-স্ত্রীর গভীর ভালবাসায় বড় ধরনের ভূমিকা রাখে ৷ এমনই একটি দিক হল: পরস্পর হাদিয়া দেয়া ৷ একটু খুঁনসুটি করা ইত্যাদি ৷

স্ত্রীকে খুশি করা, স্ত্রীকে আনন্দ দেয়া এটাও একটা ইবাদত ৷ হাদীস শরীফে আছে ৷ নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন: "تهادَوْا تحابُّوا" তোমরা একে অন্যকে উপহার দাও, এতে তোমাদের মধ্যে পারস্পরিক ভালোবাসা সৃষ্টি হবে। অন্যত্র বলেছেন: তোমরা একে অন্যকে হাদিয়া উপহার দাও। এ উপহার অন্তরের শত্রুতা ও বিদ্বেষ দূর করে দেয়। [জামে তিরমিজি : ২১৩০]। পরস্পর হাদিয়া আদান-প্রদান করা একে অন্যের প্রতি ভালবাসা, ভক্তি-শ্রদ্ধা ও সম্মানপ্রকাশক ৷ হাদিয়া পরস্পর ভালবাসাকে মজবুত ও শক্তিশালী করে ৷

বিভিন্ন উপলক্ষে কিংবা উপলক্ষ ছাড়াও আপনার জীবনসঙ্গিনীকে হাদিয়া দিন ৷ হাদিয়াটা খুব বড় কিছু হতে হবে; এটা জরুরী না ৷ আপনি নামাজের জন্য মসজিদে গেলেন ৷ আপনি জানেন সে চকোলেট পছন্দ করে ৷ তার জন্য দুটো চকোলেট নিয়ে নিন ৷ কেউ চিপস, আইসক্রীম পছন্দ করে তো তার জন্য সম্ভব হলে একটা নিয়ে যান ৷ কেউ আছে চুলের নতুন নতুন ক্লীপ পছন্দ করে! নিয়ে যান একটা ৷ মেয়েদের কেউ কেউ চটপটি, ফুসকা ও আচার জাতীয় বিভিন্ন খাবার পছন্দ করে! সুযোগ থাকলে অফিস থেকে ফেরার পথে তার জন্য কিছু নিয়ে নেন ৷ আর বলেন: দেখ তোমার জন্য কী নিয়ে এসেছি!!

আশপাশে পেলে কখনো একটি গোলাপ তার হাতে দিন ৷ কখনো বাড়ির পাশে বাহারী রকমের ছোট ছোট গ্রামীনফুল পাওয়া যায় ৷ যত্নের সাথে কিছু ফুল সংগ্রহ করে তাঁকে বলুন: আজ সম্পূর্ণ নতুন একটা জিনিস তোমার জন্য এনেছি ৷ দেখুন কত নির্মল একটা হাসি সে আপনাকে উপহার দিবে ৷ এ হাসির কত মুল্য!! একটু অনুভব করুন ৷

তাছাড়া আপনজকে ফুল হাদিয়া দেওয়া সুন্নতও বটে। 

অফিসে কিংবা মাদরাসা-মসজিদে নিজ দায়িত্বে আপনি অনেক ব্যস্ত ৷ সারাদিন একটা কল করে খবর নেওয়ার সময় সুযোগ আপনার নেই ৷ তবুও দুমিনিট সময় নিয়ে তাকে একটি বার্তা পাঠান ৷ বলুন: সময়মত যেন খাবার খেয়ে নিও! দুপুরের পর একটু ঘুমিও ৷ সন্ধায় দেখা হবে ইনশাআল্লাহ! ভাল থেক ফি আমানিল্লাহ!! দেখবেন, সে অনেক খুশি হয়ে যাবে! সুযোগ থাকলে সেও আপনাকে ফিরতি বার্তা পাঠাবে! এভাবেই পরস্পরের ভালবাসাটা গভীর থেকে গভীরে পৌঁছে যাবে ইনশাআল্লাহ ৷

Facebook Comments

Leave a Reply